hariprasad-chaurasiaবেঙ্গল শাস্ত্রীয়সংগীত উৎসব ২০১৫

৫ম দিনে পণ্ডিত হরিপ্রসাদ চৌরাসিয়া’র পরিবেশনা

বেঙ্গল ফাউন্ডেশন আয়োজিত শাস্ত্রীয়সঙ্গীতের উৎসবে সঙ্গীত পরিবেশন করবেন প্রবাদপ্রতীম শিল্পী পণ্ডিত হরিপ্রসাদ চৌরাসিয়া। বাঁশির সুরে পুরো পৃথিবীকে মুগ্ধ করা এই শিল্পী বাংলাদেশের সঙ্গীতপ্রেমীদের সামনে হাজির হচ্ছেন উৎসবের ৫ম দিন রাতে। উল্লেখ্য, আগামী ২৭ নভেম্বর ২০১৫ তারিখ থেকে শুরু হচ্ছে এই উৎসব।

পণ্ডিত হরিপ্রসাদ চৌরাসিয়ার জন্ম ১৯৩৮ সালে ভারতের উত্তর প্রদেশের এলাহাবাদে। কুস্তিগীর বাবা চাইতেন ছেলও যেন তাঁর মত কুস্তিগীর হয়। কিন্তু, যার ধমনীতে রয়েছে সুরের টান সে কি আর কুস্তিগীর হতে পারে! লুকিয়ে বাঁশি শিখতে শুরু করেন চৌরাসিয়া।

১৫ বছর বয়সে পণ্ডিত চৌরাসিয়া কন্ঠসঙ্গীতের তালিম নিতে শুরু করেন প্রতিবেশি শিল্পী রাজারামের কাছে। পরে তিনি বারণসী’র পণ্ডিত ভোলানাথ প্রসন্ন-এর কাছে আট বছর বাঁশি শিখেন। ১৯৫৭ সালে তিনি অল ইন্ডিয়া রেডিওর হয়ে কাজ করতে শুরু করেন।

কিংবদন্তী শিল্পী ওস্তাদ আলউদ্দিন খাঁ-এর কন্যা প্রখ্যাত সুরবাহারবাদক অন্যপূর্ণা দেবীর কাছেও তাঁর তালিম নেওয়ার সৌভাগ্য ঘটে। অন্যপূর্ণা দেবী তাঁর বংশীবাদনায় মৌলিক পরিবর্তন আনেন। তবে শেখানোর আগে তিনি চৌরাসিয়াকে একটি শর্ত দেন—ডান হাতের পরিবর্তে বাম হাতে বাঁশি বাজাতে হবে। চৌরাসিয়া শর্ত মেনে নিয়ে তালিম নিতে শুরু করেন।

পণ্ডিত হরিপ্রসাদ চৌরাসিয়া সঙ্গীতে অবদানের জন্য সঙ্গীত নাটক একাডেমি পুরস্কার, পদ্মভূষণ পুরস্কার’সহ বহু পুরস্কার ও সম্মানে ভূষিত হয়েছেন। তিনি ভারতীয় উপমহাদেশের উচ্চাঙ্গসঙ্গীতকে বিশ্বের দরবারে উপস্থাপন করার ক্ষেত্রে বড় ভূমিকা রেখেছেন।

সাতদিন/এমজেড

২৮ নভেম্বর ২০১৫

সঙ্গীত

 >  Last ›