৫ অক্টোবর সন্ধ্যা ৭টা, শিল্পকলা একাডেমি, ঢাকা

দৃশ্যপটের পরিবেশনায় ‘সক্রেটিসের জবানবন্দী’


সক্রেটিসকে নিয়ে প্লেটোর লেখা ‘আপোলোগিয়া সোক্রাতুস’ অবলম্বনে শিশিরকুমার দাশ নতুন আঙ্গিকে রচনা করেছেন নাটক ‘সক্রেটিসের জবানবন্দী’। নির্দেশনা দিয়েছেন আলী মাহমুদ। নাটকটি মঞ্চায়িত হবে রাজধানীর সেগুনবাগিচায় অবস্থিত শিল্পকলা একাডেমির জাতীয় নাট্যশালার মূল মিলনায়তনে।

খ্রিস্টের জন্মের চার’শ বছর আগের প্রেক্ষাপটে নাটকের কাহিনী সাজানো হয়েছে। পেলোপনেসিয় যুদ্ধে এথেন্স পরাজিত হলে রাজ্যের গণতান্ত্রিক ব্যবস্থা ধ্বংস হয়। ফলে এথেন্সের শাসন ও রাজ্য পরিচালনার ভার নেয় তিরিশজন লোক। এই তিরিশজন লোক নিয়ে গড়া হয় স্বৈরতন্ত্র। তার থেকে এগারো জনকে নিয়ে গঠন করা হয় একাদশ পরিষদ। যাদের কাজ ছিল গণতন্ত্রের গলা টিপে ধরা আর গণতন্ত্র সমর্থকদের শাস্তি দেয়া।

স্বৈরশাসকেরা তাদের সমর্থক হিসেবে সক্রেটিসকে চাইলে সক্রেটিস তাদেরকে সমর্থন দিতে অস্বীকৃতি জানায়। শাসকগোষ্ঠী শুরু করে অত্যাচার নিপীড়ন। প্রহরীরা সক্রেটিস ভেবে বিভিন্নজনকে ধরে আনতে শুরু করলে, একদিন সক্রেটিস নিজেই এসে উপস্থিত হলেন এই একাদশ চক্রের সামনে।

বিভিন্ন বিচারকার্যের পর সক্রেটিসের মৃত্যুদণ্ড ঘোষণা করা হয়। সক্রেটিস দণ্ড মেনে নিয়ে মৃত্যুর জন্য প্রতীক্ষা করেন এবং শেষ পর্যন্ত হেমলক বিষপান করেন।

সাতদিন/এমজেড

৫ অক্টোবর ২০১৫

নাটক

 >  Last ›