ওয়াহিদুল হকের প্রয়াণদিবসে ছায়ানটের সাংস্কৃতিক আয়োজন

২৭ জানুয়ারি সকাল ৭টা ও সন্ধ্যা ৬টা ৩০ মি:

ছায়ানট মিলনায়তন, শংকর, ঢাকা

সংগীত গুরু ওয়াহিদুল হক-এর অষ্টম প্রয়াণদিবসে ছায়ানট বিশেষ অনুষ্ঠানমালার আয়োজন করেছে। ছায়ানট মিলনায়তনে অনুষ্ঠিতব্য এই আয়োজনের অংশ হিসেবে ২৭ জানুয়ারি সকাল ৭টায় থাকছে ছায়ানটের শিল্পীবৃন্দের অংশগ্রহণে সম্মেলক গানের অনুষ্ঠান। এরপর সন্ধ্যা ৬টা ৩০ মিনিটে থাকছে ‘পথ ও পথিক’ শীর্ষক সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। একক ও সম্মেলক গান, আবৃত্তি ও পাঠ দিয়ে সাজানো হয়েছে এই অনুষ্ঠান।

সংগীতগুরু ওয়াহিদুল হক ১৯৩৩ সালে ঢাকা জেলায় জন্মগ্রহণ করেন। তিনি সাংবাদিকতাকে পেশা হিসেবে নেন এবং অবজারভার, ডেইলি স্টার’সহ দেশের বড় বড় সংবাদপত্রে তিনি কাজ করেছেন। তবে, তিনি একজন সংগীতজ্ঞ ও সংগঠক হিসেবেই বেশি পরিচিত। তিনি ছিলেন ঐতিহ্যবাহী সাংস্কৃতিক সংগঠন ‘ছায়ানট’-এর প্রতিষ্ঠাতা সদস্য। ১৯৯৯ সাল থেকে তিনি আমৃত্যু সংগঠনটির সহ-সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন। তাঁর প্রতিষ্ঠা করা সংগঠনগুলোর মধ্যে আরও রয়েছে—‘কন্ঠশীলন’, ‘শিশুতীর্থ’, ‘আনন্দধ্বনি’, ‘বাংলাদেশ আবৃত্তি ফেডারেশন’ ইত্যাদি। এ ছাড়া তিনি ‘জাতীয় রবীন্দ্রসংগীত সম্মিলন পরিষদ’, ‘স্বাধীন বাংলা শিল্পী সংস্থা’সহ বহু সংগঠনের প্রতিষ্ঠাতা সদস্য।

ওয়াহিদুল হকের প্রকাশিত গান ও আবৃত্তি’র সিডিগুলোর মধ্যে রয়েছে—‘সকল কাঁটা ধন্য করে’, ‘আজ যেমন করে গাইছে আকাশ’, ‘আছ অন্তরে’, এবং ‘রবীন্দ্রনাথের কবিতা’। সংগীত চর্চার পাশাপাশি তিনি লেখালেখিও করেছেন প্রচুর। ‘চেতনা ধারায় এসো’, ‘গানের ভিতর দিয়ে’, ‘সংস্কৃতিই জাগরণের প্রথম সূর্য’, ‘প্রবন্ধ সংগ্রহ’, ‘ব্যবহারিক বাংলা উচ্চারণ অভিধান’, ‘সংস্কৃতির ভূবন’ ইত্যাদি তাঁর প্রকাশিত উল্লেখযোগ্য গ্রন্থ।

সাতদিন/এমজেড/২৬জানুয়ারি২০১৫


সঙ্গীত

 >  Last ›