সন্ধ্যা ৭টা ৪৫ মি, ঈদের ৬ষ্ঠ দিন, দেশটিভি

বিশেষ নাটক: পিপলু’স শো

রচনা ও পরিচালনা: নাজনীন হাসান চুমকী
অভিনয়: শাহাদাত, মম


লতিফ খান একজন মূকাভিনয় শিল্পী। গ্রাম থেকে শহরে এসে কোন কাজ না পেয়ে অবশেসে একটা রেস্টুরেন্টে মাইমের শো করে সে। লতিফের ছোট ভাই নাফিজও লতিফের কাছে আসে পড়াশুনার জন্য। আর তাই এখন খরচ বহন করতে অনেক কষ্ট হয় লতিফের। সে রেস্টুরেন্টে মূকাভিনয় প্রদশনের পাশাপাশি চাকরী খুঁজতে থাকে। একটা অফিসে ইন্টারভিউ দিতে গিয়ে তার পছন্দ হয় একটা সুন্দরী মেয়েকে। কিন্তু নিজের সামাজিক অবস্থান চিন্তা করে কিছুই বলতে পারেনা সে। তবে নানাভাবে কৌশলে জানালেও মেয়েটি লতিফকে কোন পাত্তা দেয়না। কিন্তু একদিন সেই মেয়েটিই রেস্টুরেন্টে পিপলু’স শো দেখতে আসে। লতিফ খুব খুশি হয়। মেয়েটি পিপলু’স শো খুব পছন্দ করে। সে প্রায়শই শো দেখতে আসে। এরমধ্যে একদিন মেয়েটি তার ছেলে বন্ধুকে নিয়ে একদিন শো দেখতে এলে লতিফ শো দেখাতে দেখাতে কেঁদে ফেলে।


এরই মধ্যে একদিন রেস্টুরেন্টের ম্যানেজারকে সেই মেয়েটি জানায় জন্মদিনে তার পিপলু’স শো চাই। নির্দিষ্ট দিনে ম্যানেজার লতিফকে ঠিকানা ধরিয়ে পাঠিয়ে দেয়। লতিফ গিয়ে যখন দেখে যে সেই মেয়োটারই জন্মদিন আর তাকে সেখানে পারফর্ম করতে হবে তখন সে নিজের মুখে মেকাপ নিয়ে নিজেকে ঢেকে ফেলে। তারপর শো করে। কিন্তু শো শেসে মেয়েটি বলে যে সে মেকাপ ছাড়াই পিপলুকে দেখতে চায়। অনেকবার বলার পরে লতিফ শুধু মাত্র মেয়েটির জন্মদিনের জন্য নিজের মেকাপ তুলে ফেলে। মেয়েটা যখন দেখে যে এই পিপলুই সেই লতিফ তখন সে রাগ করে। অপমানিত হয়ে লতিফ গ্রামের বাড়িতে ফিওে যাবার সিদ্ধান্ত নেয়। সেই সময় তার সামনে এসে দাঁড়ায় মেয়েটি। সে তার ভুলের জন্য ক্ষমা চায় লতিফের কাছে আর সেই সাথে জানায় সে লতিফকে ভালোবাসে। আবার নতুন করে বাঁচার স্বপ্ন দেখে লতিফ। এমন এক গল্প উঠে এসেছে “পিপলু’স শো” নাটকে।

নাজনীন হাসান চুমকীর রচনা ও পরিচালনায় এ নাটকে অভিনয় করেছেন শাহাদাত, মম’সহ আরও অনেকে।

সাতদিন/এমজেড

২২ জুলাই ২০১৫

নাটক

 >  Last ›