সন্ধ্যা ৭টা ৩০ মি, ১৫ জুলাই, শিল্পকলা একাডেমি, ঢাকা

ঢাকায় ‘হ্যামলেট’-এর মঞ্চায়ন করবে

শেক্সপিয়রের গ্লোব থিয়েটার


লন্ডনের বিশ্ববিখ্যাত নাট্যদল গ্লোব থিয়েটার ঢাকার মঞ্চে পরিবেশন করবে শেক্সপিয়রের কালজয়ী নাটক ‘হ্যামলেট’। বহু কালজয়ী নাটকের স্রষ্ঠা ইংরেজ নাট্যকার উইলিয়াম শেক্সপিয়র এই নাট্যদলের সাথে যুক্ত ছিলেন। ঢাকার সেগুনবাগিচায় অবস্থিত বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির জাতীয় নাট্যশালার মূল মিলনায়তনে ‘হ্যামলেট’-এর মঞ্চায়ন হবে ১৫ জুলাই সন্ধ্যা ৭টা ৩০ মিনিটে। শেক্সপিয়রের ৪৫০তম জন্মবার্ষিকী এবং ৪০০তম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষ্যে গ্লোব থিয়েটারের বিশ্ব ভ্রমণের অংশ হিসেবে নাটকটি ঢাকায় মঞ্চায়িত হতে যাচ্ছে। দুই বছরের এই ভ্রমণে নাট্যদলটি পৃথিবীর সবকটি দেশে ‘হ্যামলেট’-এর মঞ্চায়ন করবে। উল্লেখ্য, ১ জুলাই নাটকের টিকিট ছাড়া হলে তা ১৫ মিনিটেই শেষ হয়ে যায়।

নাটকের কেন্দ্রীয় চরিত্র ডেনমার্ক-এর যুবরাজ হ্যামলেট তাঁর পিতার হত্যার প্রতিষোধ নিতে সচেষ্ট হয়। সে তার মৃত পিতার আত্মার কাছে জানতে পারে যে তার চাচা ক্লডিয়াসই তার পিতার হত্যাকারী। অপরদিকে ক্লডিয়াস ডেনমার্কের সিংহাসনে আরোহন করেন এবং হ্যামলেটের মাতা রানী গার্ট্রিউট-কে বিয়ে করেন। এতে হ্যামলেট খুবই অসন্তুষ্ট হয়। কিন্তু সে ক্লডিয়াসের অপরাধ সম্পর্কে নিশ্চিৎ না হওয়া পর্যন্ত ক্লডিয়াসের বিরুদ্ধে কোন পদক্ষেপ নিবে না।

অবশেষে কৌশলে সে একটি নাটকের মঞ্চায়ন করে যাতে দেখানো হয় যে কোন এক রাজার ভাই রাজাকে হত্যা করে সিংহাসন দখল করে এবং রানীকে বিয়ে করে। নাটক দেখে ক্লডিয়াসের বিরূপ প্রতিক্রিয়া হয়। নাটকে দেখানো অপরাধ ও ক্লডিয়াসের কৃতকর্ম একই ধরনের হওয়ায় তিনি রাগান্বিত হয়ে নাটকের স্থান ত্যাগ করেন। এতে হ্যামলেট নিশ্চিত হয় যে ক্লডিয়াসই প্রকৃত অপরাধী। এদিকে ক্লডিয়াস হ্যামলেটের মতি-গতি ভাল নয় দেখে তাকে ইংল্যান্ড পাঠিয়ে দিতে চায়। এভাবেই নাটকের কাহিনী এগিয়ে যায়।নানান প্রতিকূলতা সত্ত্বেও হ্যামলেট প্রতিশোধ নিতে সমর্থ হয়, কিন্তু সে নিজেও মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়ে।

নাটকটির নির্দেশনায় থাকছেন ডোমিনিক ড্রোমগুল এবং বিল বুখারুস্ট। এ নাটকে অভিনয় করছেন জন ডৌগাল, ল্যাডি এমারুয়া, ফোব ফিল্ডেস, মিরান্ডা ফস্টার, নাইম হায়াত, বেরুস খান, টম লরেন্স, জেনিফার লিয়ং, রয়রি প্যারেটিন, ম্যাথু রমেইন, অ্যামান্ডা উইকিন, কেইথ বার্টলেট প্রমুখ।

সাতদিন/এমজেড

১৫ জুলাই ২০১৫

প্রদর্শনী

 >  Last ›