ঈদের ৫ম দিন রাত ৭টা ৪৫ মি, দেশ টিভি

ঈদের বিশেষ নাটক: ঠক ঠক ঠক

রচনা: মমর রুবেল
পরিচালনা: মোহাম্মদ মেহেদী হাসান টিংকু
অভিনয়ে: সজল, তানজিকা, জয়রাজ, দিলারা জামান


সজীব, আবু তাহের আর পিয়াল আজকেই একটা নতুন বাসায় উঠেছে। তারা প্রথম দিন রাতেই আবিষ্কার করে উপর তলা থেকে সারারাত কে যেন ঠক ঠক ঠক ঠক শব্দ করছে। এই শব্দের জ্বালায় তাদের কারো ঘুম হয়না। পরেরদিন আবারো একই শব্দ। অদ্ভুত এক জ্বালাতন। এবার তিনজন মিলে বাড়িওয়ালাকে জানালো ব্যাপারটা। সেই সাথে এটা সমাধান করার জন্য অনুরোধ করল। কিন্তু বাড়িওয়ালা জানালো এই সমস্যার কোন সমাধান নেই। উপর তলায় থাকেন এক বৃদ্ধা। উনি রোজ রাতে পান খান। আর পান পিসে খেতে গিয়েই এই শব্দ। শুধুমাত্র এই শব্দের কারনেই বাড়িওয়ালা তিন হাজার টাকা কম ভাড়ায় বাসাটা ভাড়া দিয়েছেন। এখন কেউ থাকলে থাকবে না থাকলে নেই।
সজীব শ্রেয়াকে ভালোবাসে। কিন্তু আজ পর্যন্ত তাকে দেয়া কোন কথা রাখতে পারেনি। তাই শ্রেয়া রাগ করে সজীবের সাথে বিয়েতে রাজী হচ্ছেনা। এদিকে সজীব বিয়ের জন্য অর্থ যোগার করেই চলেছে। ওদিকে আবু তাহেরেরও একই অবস্থা। সে নতুন বিয়ে করে বউ গ্রামের বাড়িতে রেখে দিয়েছে। অল্প রোজগারের এই সংসারের কারনে বউকে ঢাকায় আনতে পারছেনা। এখন এই অল্প মুল্যেও বাসাটা হাত ছাড়া হয়ে গেলে বিপদ। তাই তারা তিনজন সিদ্ধান্ত নেয় এই ঠক ঠক ঠক ঠক শব্দটাকে ভালোবেসে তাদের এখানে থাকতে হবে। তিনজনই তাই এই ঠক ঠক ঠক ঠক শব্দটাতে অভ্যস্ত হয়ে গেল।
এদিকে হঠাৎ একদিন শ্রেয়া জানাল সে সজীবকে বিয়ে করতে রাজী। সজীব যখন মনের খুশিতে বিয়ের জন্য তৈরী হচ্ছিল তখন আবু তাহের জানালো তার বউ আসবে সুতরাং সজীব আর পিয়ালকে কয়েক দিন বাইরে থাকতে হবে। যেদিন শ্রেয়া সজীবকে বিয়ে করার জন্য কাজী অফিসে আসতে বলল আর তাহেরেরও বউ আসার কথা সেদিন সকালে হঠাৎ ঠক ঠক ঠক ঠক শব্দটা পাওয়া গেলনা। সজীব আর তাহের ব্যাপারটা দেখার জন্য উপওে গেল। গিয়ে দেখে বুড়ি স্ট্রোক করেছে। সজীব দ্রুত বুড়িকে নিয়ে হাসপাতালে গেল। তাহের গেল স্টেশনে বউ আনতে। কিন্তু সজীবের ফোন পেয়ে সেখান থেকে হাসপাতালে অঅসতে বাধ্য হল। ঐদিকে শ্রেয়ার আজকে কাজী অফিসে অঅসার কথা। কিন্তু সজীব যেহেতু কখনোই শ্রেয়াকে দেয়া কথা রাখতে পারেনাই তাই শ্রেয়া সেখানে উপস্থিত না হয়ে ছোটবোনকে পাঠালো বিয়ে করবেনা বলে। কিন্তু আজও সেখানে সজীব উপস্থিত হতে পারলনা। কেননা বৃদ্ধাকে হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়েছে।
বৃদ্ধা সুস্থ হলে পুরো ঘটনা জানতে পারল। বৃদ্ধা এবার প্রতিজ্ঞা করল সে নিজ হাতে সজীব শ্রেয়ার বিয়ে দেবে। আর প্রয়োজনে কখনো পান খাবেননা।

২৩ জুলাই ২০১৫

নাটক

 >  Last ›