রাত ১১টা ৫৫ মি, ঈদের ৩য় দিন, বাংলাভিশন

নাটক: সিনড্রেলা

রচনা: জাকির হোসেন উজ্জ্বল
পরিচালনা: নুজহাত আলভী আহমেদ
অভিনয়ে: অপি করিম, সজল, শর্মিলী আহমেদ

জাকির হোসেন উজ্জ্বল-এর রচনা ও নুজহাত আলভী আহমেদ-এর পরিচালনায় নাটক ‘সিনড্রেলা’ বাংলাভিশনে প্রচার হবে ঈদের ৩য় দিন, ২৭ সেপ্টেম্বর রাত ১১টা ৫৫ মিনিটে। নাটকে অভিনয় করেছেন অপি করিম, সজল, শর্মিলী আহমেদ প্রমুখ।

নওরিন বৃদ্ধি প্রতিবন্দী মেয়ে। শারীরিক ভাবে বড় হলেও মানসিক ভাবে সেই ছোট বয়সেই আটকে আছে সে। অষ্পষ্ট ভাবে ভেঙ্গে ভেঙ্গে খুব অল্প কথা বলে সে। পুতুল খেলতে ভালবাসে। ওর খুব প্রিয় একটা পুতুলের নাম সিনড্রেলা। সারাক্ষণই সেই পুতুলের সাথে খেলা করে কথা বলে। বাবা আদর করে ওর নাম দিয়েছিল সিনড্রেলা। এখনও নিজেকে ঐ পুতুলটার মতোই মনে করে ও। সময় এগিয়ে গেছে কিন্তু সেই সিনড্রেলাতেই আটকে আছে ওর জীবন।

দাদী নুরজাহান বেগম আকস্মিক এক্সিডেন্টে ছেলে আর ছেলের বৌয়ের মৃত্যুতে ভীষণভাবে মুষড়ে পড়েন। ছোট নওরিনকে আকড়ে ধরে বাঁচতে চেয়েছিলেন। কিন্তু সময় যত পার হতে থাকে এক ধরণের অস্বস্থিতে পড়ে যায় সে। কারণ নওরিনের আচার-আচরণ এতটা অস্বাভাবিক যে অনেক চিকিৎসা করেও ওকে স্বাভাবিক করে তুলতে পারেননি। বুদ্ধি প্রতিবন্ধী নাতনীকে নিয়ে বিপাকে পড়ে যেতে হয় তাকে। একসময় নুরজাহান বেগম উপলব্দি করেন নওরিনকে বিয়ে না দিয়ে তিনি মারা গেলে মেয়েটার ভবিষ্যৎ বলে কিছুই থাকবে না। তার এই বিশাল সম্পত্তিও কোন কাজে লাগবে না। তিনি হন্যে হয়ে ছেলে খুঁজতে থাকেন। তার সমস্ত সম্পত্তির বিনিময়ে হলেও নাতনীকে বিয়ে দিতে চান তিনি। তখনই হাজির হয় রায়ান।

রায়ান আধূনিক উচ্চাবিলাসী যুবক। টাকা আর সম্পত্তির লোভে পড়ে বয়সে ওর চাইতে সাত/আট বছরের বড় নওরিনকে বিয়ে করতে রাজী হয়ে যায় ওরই প্রেমিকা এ্যানির পরামর্শে। রায়ানের পরিকল্পনা থাকে মেয়েটাকে বিয়ে করে কোন ভাবে সম্পত্তিটা নিজের করে নিয়ে ডিভোর্স দিয়ে দিবে। নিজের পরিকল্পনা বাস্তবায়ণ করতে গিয়ে আস্তে আস্তে ভয়ঙ্কর হয়ে উঠে সে.....।

২৭ সেপ্টেম্বর ২০১৫

টেলিভিশন

 >  Last ›