দুপুর ২টা ৩০ মি, ঈদের ৩য় দিন, চ্যানেল আই

টেলিছবি ‘ওভারট্রাম্প’

রচনা: ফারুক হোসেনের
পরিচালনা: অঞ্জন আইচ
অভিনয়: মৌ, সজল, ফারিয়া

ডিবি ইন্সপেক্টর রিতার মুখোমুখি সোমা নিজের বয়ফ্রেন্ডকে হত্যার অভিযোগে গ্রেফতার করা হয়েছে সোমাকে। কিন্তু পুলিশের কাছে এবং কারও কাছে কোনো প্রমাণ নেই। এই হত্যা মামলার দায়িত্ব পরেছে এই সময়ে সবচেয়ে নামকরা অফিসার রিতার উপর। রিতা যেন কিছুতেই কিছু করতে পারছে না। কারণ রিতা যত বেশি ইন্টিলিজেন্ট ঠিক ততটাই দূরত্ব সোমা। হত্যার দিন মাঝরাতে সোমার বয়ফ্রেন্ড শাহেদ একবার সোমাদের বাসায় এসেছিল। এই কথা মোটামুটি সবাই জানে এবং কি সোমা সবার কাছে এও বলেছে যে, শাহেদ আসলে খুব খারাপ একজন মানুষ এবং সত্যি সত্যি এইসব ব্যাপার নিয়ে তাদের মধ্যে তীব্র ঝগড়াও হয়েছিল এবং এক পর্যায় এর পুলিশের কাছে শাহেদের নামে অভিযোগও করেছিল। কিন্তু কোনোকিছুতেই কোনোকিছু হয়নি বরং শাহেদ বেপরোয়াভাবে সবার সাথে মিশতে চেয়েছে। একপর্যায় সোমা ও শাহেদকে বাড়ি ডেকে নিয়ে কফির সাথে মিশ মিশিয়ে তাকে খাওয়ায়। কিন্তু রিতার বেলায় সে স্টেমেন্ট যেন মুহূর্তের মধ্যে উড়িয়ে দেয় সোমা। বরং সে রিতাকে বলে যে, কাউকে খুন করতে হলে কাউকে কেউ বাড়িতে ডেকে নিয়ে আসে না। কিন্তু সোমা পুলিশকে শাহেরের দেওয়া সুইসাইড নোট চেক করতে বলে বেশ দ্বন্দ্বের মধ্যে পরে যায় ডিবি অফিসার। আসলে কোনোভাবেই সে সোমাকে দোষী প্রমাণ করতে পারে না। হঠাৎ করে রিতার মাথায় আসে নতুন এক চাল। গল্পের মোর নেয় অন্যদিকে

২৭ সেপ্টেম্বর ২০১৫

টেলিভিশন

 >  Last ›