বিকেল ৪টা ৩০ মি, ঈদের ৪র্থ দিন, চ্যানেল আই

টেলিছবি ‘মানুষ হতে সাবধান’

রচনা ও পরিচালনা: ইফতেখার আহমেদ ফাহমি
অভিনয়: চঞ্চল চৌধুরী, নাদিয়া, আখম হাসান প্রমুখ।

সুজন এইচএসসিতে অনার্স অর্থাৎ চার বার এইচএসসিতে ফেল, বাস্তবিক অর্থে সুজন শুধু এসএসসি পাস কিন্তু সবাইকে বলা হয় সে এইচ আর এ ডিপ্লোমা এবং টুরিজম এর উপরে ছোট একটা কোর্স করা আছে। বাকপটু যে কোনো পরিস্থিতিতে নিজেকে এবং চারপাশের পরিবেশকে সামনে নিতে পারে, শুধু এক জায়গায় তার এ ব্যাপারে ব্যর্থতা আছে। আর তা হলো তার প্রেমিকার সামনে।


সাবিহার সাথে সুজনের এখন বিয়ের কথা চলছে। পারিবারিক ভাবনা শুধু নিজেদের মধ্যে তারপরও ভবিষ্যতের কথা ভাবতে হবে। তাই সুজন দিনের প্রায় চারদিনই নিজের ব্যবসা নিয়ে ব্যস্ত থাকে সাত রঙে এ রঙধনুর মতো তবে মূল ব্যাপারটা হলো বিদেশে লোক পাঠানো সৌদি, মালয়েশিয়া, থাইল্যান্ড, আরও টুকটাক কয়েকটি দেশে ম্যান পাওয়ার পাঠানো তার কাজ। এ কাজটি সে খুব পরিপূর্ণভাবে করিতে পারে। আরও বেশি যে কাজটি খুব দক্ষতার সাথে করতে পারে তা হলো কটির মধ্যে ৪২০ উপাদান যোগ করতে। যেমন একজনকে হয়তো পাঠানোর কথা মালয়েশিয়ায় তাকে হয়তো কয়েকমাস রাখা হয় একটি সুন্দর হোটেল রুমে যার অবস্থান কুষ্টিয়া। কারণ ঐ দেশে যাওয়ার আগে কোম্পানির সাহায্যে ফ্রে ট্রেনিং ব্যবস্থা, এইরকম নানা ৪২০ উপাদান সুজনের জানা। তবে এই ক্ষেত্রে সে যাবার পথে সে একই কাজ করে তা না। সুজনের ক্ষেত্রে রেশিও হলো ৭২:২৮ অর্থাৎ ১০০% এ ২৮% হলো ৪২০ উপকরণ বাকি ৭২% সলিড অনেস্ট ব্যবসা। সুজনের কথা হলো পুরোটাই ভেজাল হলে সমস্যা। ভেজালের পরিমাণ হবে স্বর্ণের মধ্যে খাদের পরিমাণের মতো। যার মধ্যে ভেজাল থাকাটা জরুরি কারণ তা না হলে গহনা বানানো যাবে না। কিন্তু ভেজাল মিশ্রণের এ ক্ষেত্রটা শুধু স্বর্ণের জন্যই প্রযোজ্য। জীবনের বাকি সব ক্ষেত্রে মির্থা বিদ্যাকে দরকার হয় সুখশান্তিতে না। সুজনের প্রেমিকা সাবিহা একদিন তাদের ফ্যামিল অ্যালবাম নিয়ে আসে। অ্যালবামের ছবি দেখতে দেখতে ছবির একজনকে ছাবিহা পরিচয় করিয়ে দেতেই মাথায় আকাশ ভেঙে পড়ল সুজনের। ছবির লোকটি সাবিহা বড় মামা। যে কিনা ১ মাস আগে মালয়েশিয়ায় গিয়েছে। সেই মামাই নাকি তাদের বিয়ের ব্যাপারে সব ধরনের সাপোর্ট দিবেন। কিন্তু মূল গল্প হচ্ছে সাবিহার মামার মালয়েশিয়া যাওয়ার এজন্ট সুজন নিজেই। এবং সেই মামা ভদ্রলোক তার ২৮% ভেজালের মধ্যে পড়ে গেছে। সুজনের এই ভেজাল কর্ম তার পুরো সংসার জীবনটা শুরু হওয়ার দুই মাস আগেই ভেজালে চেপে দিল। এবার সুজন ভেজাল মুক্ত জীবন গড়ার অঙ্গিকারে নিজেরই তৈরি ভেজাল থেকে সাবিহার মামাকে ভেজালমুক্ত করতে প্লান করে এবং ঝাপিয়ে পড়ে।

২৮ সেপ্টেম্বর ২০১৫

টেলিভিশন

 >  Last ›